CULTURE & HISTORY
Trending

মৌলভীবাজারে পাওয়া গেছে প্রাচীন বিশ্ববিদ্যালয়ের নিদর্শন

গত শতাব্দীর ষাটের দশকে উদ্ধার হওয়া কপার প্লেটে উল্লেখ রয়েছে উপমহাদেশের প্রাচীন ও বিখ্যাত বিদ্যাপীঠ নালন্দা ও তক্ষশীলার মতো সিলেটের মৌলভীবাজারে চন্দ্রপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের কথা। অবস্থান হিসেবে বলা আছে উত্তরে কুশিয়ারা নদী, দক্ষিণে মনু নদী ও পূর্বে ইন্দেশ্বরের পাহাড়ি অঞ্চল বা পাথারিয়া অঞ্চল। এ নিয়ে মৌলভীবাজারের সাগরনাল, ভাটেরা, পাঁচগাও এলাকা পরিদর্শন ও প্রাথমিক অনুসন্ধান চালায় প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ।

কুমিল্লার প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর ফিল্ড অফিসার শাহীন আলম বলেন, ‘প্রত্নবস্তুর আলামত হিসেবে কিছু ইটপাত্রের ভগ্নাংশ, প্রাচীণ মালার পাথরের গুটিকা যা ক্রিস্টাল রঙের, এগুলো আমরা পেয়েছি।’

স্থানীয় লেখক-গবেষকরা বলছেন, তাম্রশাসন মিথ্যে হতে পারে না। বর্ণিত সীমানাটি বিস্তৃত হওয়ায় এখানে গভীর অনুন্ধানে নামলেই মিলবে হাজার বছরের ইতিহাস।

লেখক ও গবেষক বিজিত দেব বলেন, ‘মৌলভীবাজারে চন্দ্রপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্তিত্ব রয়েছে সেটা যেমন ঐতিহাসিকরা স্বীকার করেছেন, তেমনি গবেষকরাও স্বীকার করতেন। কারণ সেখানে দুই-দুইটা তাম্রশাসন পাওয়া গেছে। তাম্রশাসন যে ছিলো সেটি বুঝতে হলে নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণের প্রয়োজন আছে।’

অনুসন্ধান দলের প্রধান চট্টগ্রাম ও সিলেট অঞ্চলের দায়িত্বপ্রাপ্ত পরিচালক ড. মো. আতাউর রহমান জানান, ‘কুলাউড়ায় সংরক্ষিত ঐতিহাসিক ‘এই বিশ্ববিদ্যালয়টি কোন জায়গায় প্রতিষ্ঠিত ছিলো তা আমাদের কাছে পরিষ্কার না। তিনটা জায়গাতে আমরা পর্যাপ্ত কোন ইট পাইনি। কপারপ্লেট পাওয়া গেছে, তাই এটাকে উড়িয়েও দেয়া যায়না। ভাটেরা টিলা ঢিবি’র সাথে এবং রাজনগর পাঁচগাও ইউনিয়নের পশ্চিমবাগ এলাকায় তাম্রলিপি উদ্ধার স্থানের সাথে চন্দ্রপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি যোগসূত্র থাকতে পারে।’

ঐতিহাসিকদের মতে, চন্দ্রপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা চন্দ্রবংশীয় রাজা শ্রী চন্দ্র ৯৩০ থেকে ৯৭৫ সালে রাজত্ব করেন। তার প্রশাসনিক রাজধানী ছিলো বিক্রমপুরে। প্রাচীন শ্রীহট্ট তার শাসনের আওতাভূক্ত ছিলো।

নালন্দা ও তক্ষশীলার মতো প্রাচীন বিদ্যাপীঠ চন্দ্রপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম উঠে এসেছে প্রত্নতাত্ত্বিক গষেণায়। আর এর অস্তিত্ব ছিলো আজকের মৌলভীবাজারে। এ নিয়ে গবেষণা চালাচ্ছে অক্সফোর্ড ও ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ও।

News Courtesy: DBC News 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close